ফের পিড়াকাটার দুই পুলিশকর্মী সহ শালবনীতে ৭, ডেবরা’তে ১৪, কেশপুর, ক্ষীরপাই, গড়বেতা, চন্দ্রকোনা সহ জেলায় ১৫২ জন করোনা সংক্রমিত, মৃত্যু ৪ জনের

More Corona Infected at Paschim Medinipur

.

মণিরাজ ঘোষ, পশ্চিম মেদিনীপুর, ২৮ সেপ্টেম্বর: পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, রবিবার রাতে জেলায় নতুন করে ১৫২ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে (আরটি-পিসিআর- ১১৪, অ্যান্টিজেন- ২৫ ও ট্রুনেট- ১৩ সহ)। এর ফলে, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৯৪৫২ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন, ৭৯২৯ জন। চিকিৎসাধীন বা সক্রিয় করোনা আক্রান্ত হলেন ১৫২৩ জন। এর মধ্যে, গৃহ নিভৃতবাসে আছেন (উপসর্গহীনরা) ১২২৬ জন। করোনা হাসপাতাল ও সেফ হোমে (নিরাপদ নিলয়ে) চিকিৎসাধীন আছেন, ২৯৭ জন। গত চব্বিশ ঘণ্টায় ৪ জন করোনা আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে! এর ফলে জেলায় মোট মৃত্যু সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৪৮। মৃত্যু’র হার ১.৫৬ শতাংশ। গত চব্বিশ ঘণ্টায় শালবনী, গড়বেতা, চন্দ্রকোনা, ঘাটাল, ক্ষীরপাই, দাসপুর, কেশপুর, ডেবরা প্রভৃতি জেলার সর্বত্র করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। তবে, অধিকাংশজনই উপসর্গহীন বলে জানা গেছে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে। উপসর্গযুক্তদের পাঠানো হয়েছে করোনা হাসপাতালে।
শালবনীতে করোনা সংক্রমিত ৭ জন‌ :

.

রবিবার (২৭ সেপ্টেম্বর), র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টে শালবনী ব্লকের পিড়াকাটা পুলিশ পোস্টের ২ জন পুলিশকর্মী’র রিপোর্ট নতুন করে পজিটিভ এসেছে বলে জানা যায়। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, পুলিশ পোস্টের সদ্য প্রাক্তন আইসি বা বড়বাবু বিশ্বজিৎ মন্ডল (বর্তমানে, দাঁতন থানার সেকেন্ড অফিসার হিসেবে যোগদান করবেন) ও সেকেন্ড অফিসার বা মেজোবাবু উৎপল সিংহ মহাপাত্র সম্প্রতি (২৫ সেপ্টেম্বর) করোনা মুক্ত হয়ে ফিরে গেছেন। এই মুহূর্তে দু’জনই সুস্থ বলে জানা যায়। তাঁরা গত ১৬ সেপ্টেম্বর করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। এরপর, গত ২৩ সেপ্টেম্বর করোনা সংক্রমিত হয়েছিলেন এস.আই মনোজ কুমার মাহালি। তিনি, বর্তমানে আয়ুশ করোনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এবং সুস্থ হয়ে ওঠার পথে। এরই মধ্যে, পিড়াকাটা পুলিশ পোস্টের আরো দু’জন পুলিশকর্মী’র (বয়স যথাক্রমে, ৪১ ও ৪৩) রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে গতকাল রাতে। এছাড়াও, পিড়াকাটা পুলিশ পোস্টের অধীন সাতপাটী গ্রামের এক প্রৌঢ়ের (৭৬) রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে গতকালের র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টে। অপরদিকে, শালবনী ব্লকের কাশীজোড়া (৩৫ বছরের যুবক), লালগেড়িয়া (৪২ বছরের ব্যক্তি) এবং শালবনী বাজারের চকতারিনীতে (৩৫ বছরের যুবক) একজনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।‌ সবমিলিয়ে, শালবনী ব্লকের ৭ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে গতকাল রাতে। কেশপুর ব্লকেও ৭ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। কেশপুরের ব্লকের আনন্দপুরের ৩ জন, লেপসা ১ জন, তালতলার ১ জন এবং কেশপুরের ২ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। অপরদিকে, বেলদার মান্যা এলাকার ১ জন, সুভাষপল্লী’তে একই পরিবারের ২ জন, সবুজপল্লী’তে ১ জন এবং বেলদায় ১ জন সহ মোট ৫ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে গতকাল। এছাড়াও, দাঁতন ১ নং ব্লকের চাউলিয়া, মনোহরপুর, টোকিনগর তিনটি এলাকাতেই মোট ২ জন করে ৬ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। দাঁতন ২ নং এর তালডা,‌ নন্দকুড়িয়া সহ মোট ৭ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। মোহনপুরে নতুন করে ১ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।

THEBENGALPOST.IN
ডেবরা, কেশপুর, গড়বেতা সহ জলায় করোনা সংক্রমিত ১৫২ জন :

.

এদিকে, ডেবরা ব্লকে ফের ১৪ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে রবিবার রাতে। ভোগপুর (ডুঁয়া ১০/২) এলাকায় ২ জন, বালিচক এলাকায় ১ জন ছাড়াও অর্জুনী (আঁশিগেড়িয়া), সত্যপুর, বৌলিসিনি (সত্যপুর ৩ নং), মির্জাপুর (সত্যপুর ৩ নং), গোপকান্ঠি (৩ নং), কামালপুর, মুড়ামাটি (লোয়াদা), রঘুনাথপুর, শ্রীরামপুর প্রভৃতি এলাকায় ১ জন করে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। জামনা (পিংলা) ও কুলডিহা এলাকাতেও ১ জন করে মোট ২ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। চন্দ্রকোনা ১ নং এর ক্ষীরপাইতে রাজনগর, গোপালপুর, কোচগেড়িয়া ও ক্ষীরপাই পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ড সহ মোট ৫ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। ঘাটাল পৌরসভায় ৭ জন‌ সহ ঘাটাল এলাকায় মোট ১১ জন, দাপপুর ১ নং এ ৫ জন এবং ২ নং এ ১ জন‌ করোনা আক্রান্ত হয়েছেন রবিবার। এদিকে, গড়বেতা ৩ নং ব্লক অর্থাৎ সাতবাঁকুড়ার চন্দ্রকোনা রোডে ৩ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন।‌ গড়বেতা’তে নতুন করে ২ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানা গেছে। জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গত চব্বিশ ঘণ্টায় সবমিলিয়ে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ১৫২ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন শতাধিক ব্যক্তি।

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে