জীবনের নতুন পথ চলা শুরু অমৃতা-আনমোলের

.

বিশেষ প্রতিবেদন, সুদীপ্তা ঘোষ, ৩ নভেম্বর: নতুন রূপে জীবনের কাহিনী শুরু করলেন অমৃতা রাও। তবে সেটা কোনো চলচ্চিত্রে নয়, বাস্তব জীবনে। মা হিসেবে রবিবার (১ নভেম্বর) থেকে পথ চলা শুরু করলেন অমৃতা। নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে তিনি নিজেই এই খুশির খবর প্রকাশ করেন ফ্যানদের কাছে। মুম্বাইয়ের একটি বেসরকারি হাসপাতালে পুত্র সন্তানের জন্ম দেন “ম্যায় হুঁ না” খ্যাত এই অভিনেত্রী। পুত্রের জন্মের সময় পাশেই ছিলেন স্বামী আর জে আনমোল। হাসপাতাল সূত্রে খবর মা এবং সন্তান উভয়েই ভালো আছেন।

thebengalpost.in
নতুন জীবনে অমৃতা-আনমোল :

.
.

নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে ১৯ অক্টোবর প্রথম নিজের মাতৃত্ব উপভোগ করার ছবি পোস্ট করেন অমৃতা। পোস্টে লেখা ছিল, “এটা হয়তো তোমাদের জন্য ১০ নম্বর মাস, কিন্তু আমাদের জন্য এটা ৯ নম্বর। আমি এবং আনমোল ইতিমধ্যেই ৯ মাসে পড়ে গেছি। আমি খুবই খুশি এই খবর আমার ফ্যান এবং বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে। খুব শীঘ্রই বাচ্চাটি আসতে চলেছে। সবাইকে ধন্যবাদ। আশীর্বাদ করবেন।”

thebengalpost.in
আর জে আনমোলের পোস্ট :

.

২০০২ সালে “আব্ কে বারাষ্” ছবির মাধ্যমে বলিউডে পা রাখেন অমৃতা। এরপর, কখনো হিন্দি, কখনো তেলেগু চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে দেখা যায় তাঁকে। “ইশ্ক ভিস্ক”, “বিবাহ্”, ” ম্যায় হুঁ না”, “মাস্তি”, “দ্য লেজেন্ড অফ্ ভগৎ সিং”, “শিখর”, “জলি এল এল বি” প্রভৃতি ছবিতে তাঁর অসাধারণ অভিনয়ের মাধ্যমে দর্শকদের মনে জায়গা করে নিয়েছিলেন অমৃতা রাও। ২০১১ সালে “দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়া” অমৃতা রাওকে ২০১১ সালের সবচেয়ে আকাঙ্ক্ষিত ৫০ জন মহিলাদের মধ্যে একজন মহিলা হিসাবে ভূষিত করেছিল। শুধু তাই নয়, কিংবদন্তি চিত্রশিল্পী এমএফ হোসেন মাধুরী দীক্ষিতকে আঁকার ১১ বছর পরে অমৃতা রাওকে তাঁর দ্বিতীয় যাদু হিসাবে ঘোষণা করেছিলেন এবং “বিবাহ্” ছবিতে অভিনেত্রীর ভূমিকা অনুসারে বেশ কয়েকটি চিত্রকর্ম তৈরি করেছিলেন।

.

জেলা থেকে রাজ্য, রাজ্য থেকে দেশ প্রতি মুহূর্তের খবরের আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক বুক পেজ এবং যুক্ত হোন Whatsapp Group টিতে